রাখে আল্লাহ মারে কে!

গাজীপুরের টঙ্গীতে একটি প্রাইভেটকারের ওপর মালবাহী ট্রাক উল্টে পড়ে অল্পের জন্য প্রাণে বেঁচে গেলেন একই পরিবারের চারজন। একেই বলে রাখে আল্লাহ মারে কে।

মঙ্গলবার রাত সাড়ে ১১টার দিকে চেরাগআলী কাদেরিয়া টেক্সটাইল মিলসের গেটের সামনে ঢাকা-ময়মনসিংহ মহাসড়কে এ ঘটনাটি ঘটে। বিপদ আঁচ করতে পেরে পালিয়ে যায় ট্রাকচালক ও হেলপার। এ সময় আশপাশের পথচারীরা এগিয়ে এসে প্রাইভেটকারের যাত্রীদের উদ্ধার করেন।

প্রাইভেটকারের যাত্রীরা হলেন- চালক শামিম (৪০), তার স্ত্রী শান্তা আক্তার (৩৪), মেয়ে সামসাদ নাহার আনুশকা (১৬) ও সাড়ে তিন বছর বয়সী ছেলে আহনাফ হোসেন শুদ্ধ। শামিম পেশায় একজন উবার চালক।

টঙ্গী পশ্চিম থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) আবুল কাশেম বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

পুলিশ জানায়, মঙ্গলবার রাতে পরিবারের সদস্যদের নিয়ে ব্যক্তিগত প্রাইভেটকারযোগে ঢাকার মিরপুর থেকে গাজীপুরের কালিয়াকৈরের পাবরিয়া চালা গ্রামে শ্বশুরবাড়ি যাচ্ছিলেন। তাদের বহনকারী গাড়িটি ঢাকা-ময়মনসিংহ মহাসড়কের চেরাগআলি এলাকায় কাদেরিয়া টেক্সটাইল মিলসের সামনে পৌঁছলে একটি পোল্ট্রি ফিড বোঝাই ট্রাক গর্তে পড়ে উল্টে প্রাইভেটকারের ওপর পড়ে যায়।

এতে প্রাইভেটকারটি দুমড়ে মুচড়ে গেলেও গাড়িতে থাকা কেউই গুরুতর আহত হয়নি। খবর পেয়ে বুধবার সকালে ট্রাক ও ক্ষতিগ্রস্ত প্রাইভেটকার উদ্ধার করে থানায় নিয়ে যায় পুলিশ।

প্রাইভেটকার চালক শামিম বলেন, রাস্তায় খানাখন্দ ও বিআরটির নির্মাণকাজের জন্য চেরাগআলী এলাকায় যান চলাচলে ধীরগতি ছিল। হঠাৎ কিছু বুঝে উঠার আগেই একটি মালবাহী ট্রাক আমাদের বহনকারী প্রাইভেটকারের ওপর উল্টে পড়ে। এ সময় আমরা গাড়ির ভেতরেই আটকা পড়ি। পরে পথচারীদের সহায়তায় গাড়ির দরজা ভেঙে বের হই।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.