চরফ্যাসনে ইউপি মেম্বারের ঘর থেকে ভিজিডি চাল উদ্ধার।

শাহাবুদ্দিন আহমেদ ,ভোলা বার্তা  ॥

ভোলার চরফ্যাসন উপজেলায় এক ইউপি সদস্যর ঘর থেকে ৪২বস্তা চাউল উদ্ধার করেছেন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তাসহ সংগীয় পুলিশ ফোর্স। এঘটনায় মামলা দায়ের করা হয়েছে। উপজেলার চরকলমী ইউনিয়ন এর মোঃ জলিল ফরাজীর ঘর থেকে সরকারী ভিজিডি চাল উদ্ধার করা হয়েছে।

 

গোপনে সংবাদ পেয়ে রোববার চরকলমী ইউনিয়নের ৮নং ওয়ার্ডের ইউপি সদস্য জলিল ফরাজীর বাড়ির বসত ঘর থেকে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো.রুহুল আমিন অভিযান চালিয়ে ৪২ বস্তা (১২৬৮কেজি) সরকারী ভিজিডি চাল উদ্ধার করেন।

 

স্থাণীয়রা অভিযোগ করেন,ইউপি চেয়ারম্যান কাউসার আহাম্মেদ এর সাথে আতত করে ওই উদ্ধারকৃত ভিজিডি চাল কালোবাজারে বিক্রির জন্য ইউপি সদস্যে তার বাড়িতে মজুত করে রাখেন। শুধু তাই নয়,পুরো উপজেলার প্রায় চেয়ারম্যান ও মেম্বাররা জেলে পুর্নবাসন,দুস্থ্যদের চালসহ সরকারী চাল এভাবে গরিবদের না দিয়ে কালো বাজারে বিক্রি করে আসছে দীর্য দিন ধরে। এর সাথে ভোলা সদরের কিছু চাল ব্যবসায়ী জড়িত রয়েছে। স্থানীয় সরকারী গুদামের কর্মকর্তাদের সাথে মিলে তারা এসব কাজ করছেন। এঘটনায় মহিলা বিষয়ক কর্মকর্তা রমেন্দ্রণাথ বিশ্বাস বাদি হয়ে ইউপি সদস্য জলিল ফরাজীকে আসামী করে শশীভূষণ থানায় মামালা দায়ের করেন।

 

এঘটনায় ইউপি চেয়ারম্যান কাউসার আহমেদ জানান, কি ভাবে ভিজিডির ওই চাল ইউপি সদ্যসের বাড়ি গেছে তা আমার জানা নাই। ভিজিডি চাল পরিষদ থেকে সঠিক ভাবেই বন্টন করা হয়েছে।

 

এদিকে অভিযুক্ত ইউপি সদস্য জলিল ফরাজী পলাতক এবং তার মোবাইল ফোন বন্ধ থাকায় বক্তব্য জানা যায়নি।

 

মহিলা বিষয়ক কর্মকর্তা রমেন্দ্রণাথ বিশ্বাস জানান,সরকারি ভিজিডি চাল কালোবাজারে বিক্রির জন্য ইউপি সদস্যের বাড়িতে গুদামজাত করে রাখা হয়েছে-এমন সংবাদের ভিত্তিতে অভিযান চালিয়ে ৪২ বস্তা (১২৬৮কেজি) চাল উদ্ধার করা হয়। এঘটনায় শশীভুষণ থানায় মামালা দায়ের করা হয়েছে।

 

চরফ্যাসন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোঃ রুহুল আমিন জানান, ইউপি সদস্যে বাড়ি থেকে চাল উদ্ধার করা হয়েছে। তবে উদ্ধারকৃত চাল গুলো কোথায় থেকে এনে কি কারনে মজুত করা হয়েছে তা জানায়নি। অভিযুক্ত ইউপি সদস্য জলিল ফরাজীকে পুলিশ গ্রেফতার করলে সরকারী চাল মজুত করার মুল বিষয়টি জানাযাবে।

 

শশীভুষণ থানার ওসি মনিরুল ইসলাম জানান, সরকারী ভিজিডি চাল মজুত রাখার অপরাধে দন্ডবিধি আইনের ৪০৮ ও ৪২০ধারায় মামালা দায়ের করা হয়েছে। অভিযুক্ত ইউপি সদস্য পলাতক থাকায় তাকে গ্রেফতার করা যায়নি। তাকে গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে।

আপনার মন্তব্য জানান

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.