বরখাস্ত হচ্ছেন মরিনহো!

ভোলা বার্তা

সবমিলিয়ে টানা চার ম্যাচে জয়হীন ম্যানইউ। ইংলিশ প্রিমিয়ার লিগে গত ২৯ বছরে সবচেয়ে বাজে শুরু। অঘটনের ঘনঘটার মধ্যে পল পগবাসহ দলের সিনিয়র খেলোয়াড়দের সঙ্গে বিবাদে জড়িয়ে ড্রেসিংরুমের নিয়ন্ত্রণ হারিয়েছেন হোসে মরিনহো। এমন কঠিন পরিস্থিতিতেও পর্তুগিজ কোচ বলে আসছিলেন, ম্যানইউকে কক্ষপথে ফেরাতে তিনিই সবচেয়ে যোগ্য ব্যক্তি। কিন্তু পাশার দান উল্টে দেয়ার সুযোগ সম্ভবত পাচ্ছেন না তিনি।

তার ওপর আস্থা হারিয়ে ফেলেছে ক্লাবের পরিচালনা পর্ষদ। মরিনহো ছাঁটাই হলে অন্তর্বর্তীকালীন কোচের দায়িত্ব পেতে পারেন তার বর্তমান সহকারী মাইকেল ক্যারিক। আর মরিনহোর স্থায়ী উত্তরসূরি হিসেবে ম্যানইউর প্রথম পছন্দ ফরাসি গ্রেট জিনেদিন জিদান।

ম্যানইউর সাবেক অধিনায়ক গ্যারি নেভিল অবশ্য মরিনহোকে বরখাস্ত করার সিদ্ধান্তের তীব্র সমালোচনা করেছেন। অন্যদিকে দলের ব্যর্থতার সব দায় নিজে নিতে নারাজ মরিনহো। শুক্রবার সংবাদ সম্মেলনে তিনি দাবি করেন, ‘এখন ছেলেরা যা খেলছে তার চেয়ে অনেক ভালো খেলার দক্ষতা ওদের রয়েছে। আপাতত আমাদের চাই আরও পয়েন্ট। বিশেষ করে শেষ দুটি ম্যাচে মূল্যবান কিছু পয়েন্ট অকারণে নষ্ট করার পর।’

তাকে সরাসরি প্রশ্ন করা হয়, ঠিক কী কারণে জিততে পারছে না ম্যানইউ। কার্যত এই প্রশ্ন এড়িয়ে গিয়ে তার সংক্ষিপ্ত জবাব, ‘একটা নয়, অনেক কারণে।’ দলের ছন্দ এবার ফেরাবেনই এমন কোনো আশ্বাস তিনি ভক্তদের দিচ্ছেন কি না জানতে চাওয়া হলে কোনো জবাবই দেননি মরিনহো।

এদিকে ম্যানইউর সাবেক তারকা পল স্কোলস নিজের আগের অবস্থান থেকে সরে এসে বলেছেন, ‘আসলে ক্লাবে কী পাচ্ছেন না জানিয়ে এতদিন হোসের বিলাপ শুনতে শুনতে আমি ক্লান্ত হয়ে পড়েছিলাম। ক্লাবও খারাপ খেলে যাচ্ছিল। তাই হোসেকে আর রাখা উচিত নয় মনে হয়েছিল। কিন্তু এতটা বলা বোধ হয় ঠিক নয়। সন্দেহ নেই হোসে একজন অসাধারণ কোচ। তার রেকর্ডই সেটা বলে দিচ্ছে। আশা করব, ম্যানইউকে এই কঠিন অবস্থা থেকে বের করে আনার চ্যালেঞ্জটা হোসে নেবেন এবং বুঝিয়ে দেবেন তিনি কত বড় কোচ।’

Leave a Reply

Your email address will not be published.