করোনার মধ্যে চরফ্যাশনের বিনোদন স্পটে জনতার ঢল

ভোলার চরফ্যাশনে পবিত্র ঈদুল ফিতরের পরের দিন বিনোদন স্পটগুলোয় নারী পুরুষ ও শিশু কিশোরের ঢল নামে। করোনা মহামারির মধ্যে এমন পরিস্থিতি নিয়ে উদ্বেগ প্রকাশ করছেন সচেতন মহল।

উপজেলার কয়েকটি বিনোদন স্পট ঘুরে দেখা গেছে, শিশুকিশোরসহ বিভিন্ন বয়সের মানুষকে ঘোরাঘুরি করতে। চরমাদ্রাজের খেজুরগাছিয়া, আসলামপুরের লঞ্চ ঘাটের বেতুয়া মেঘনা বিনোদন স্পট, বেতুয়া স্লুইসগেট, সামরাজ নদীর পাড়সহ বিভিন্ন বিনোদন স্পটে হাজার হাজার মানুষ যাদের অধিকাংশের মুখেই নেই মাস্ক ও সামাজিক দূরত্ব।

মঙ্গলবার বিকালে চরফ্যাশন বেতুয়ার বিনোদন স্পট মেঘনা পাড়ে ঈদের পরবর্তীতে বিনোদন করার জন্যে জনতার ঢল দেখে সংবাদকর্মী ও প্রশাসন হতাশ হয়ে পড়ে।

করোনার মধ্যে চরফ্যাশনের বিনোদন স্পটে জনতার ঢল

বেতুয়া ঘাটের বিনোদন স্পটের দর্শনার্থী আবদুল আজিজ বলেন, আমরা অনেক দিন ঘরে ছিলাম। আর ভাল লাগে না, তাই বেতুয়াঘাটের নদীর পাড় ঘুরতে আসছি।

মুখে মাস্ক ও সামাজিক দূরত্বের ব্যাপারে তিনি বলেন, এত দর্শনার্থীদের মধ্যে এটি পালন করার সম্ভব নয়।

চরফ্যাশন থানার ওসি শামসুল আরেফীন বলেন, ঈদে যারা ঢাকা, নারায়ণগঞ্জ ও চট্টগ্রাম থেকে আসছে সংবাদ পেয়ে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার মাধ্যমে ওই বাড়ি লকডাউন করা হয়েছে। আমাদের দায়িত্ব পালনের ক্ষেত্রে কোনো দুর্বলতা নেই। চরফ্যাশনের প্রত্যেক মানুষ সচেতন হোক এটা আমরা চাই।

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা রুহুল আমিন জানান, বিভিন্ন মহল থেকে অভিযোগ পেয়েছি। আমরা করোনাভাইরাস সচেতনতায় প্রচার প্রচারণাসহ ভ্রাম্যমাণ আদালতের অভিযান চালাচ্ছি। যারা সরকারের নির্দেশনা মানছে না তাদের বিরুদ্ধে যথাযথ ব্যবস্থা নেয়া হবে এবং প্রত্যেক বিনোদন স্পটসহ অন্যান্য এলাকায় অভিযান চালানো হবে। যারা প্রয়োজনে ঘরের বাহিরে বের হবে তাদের বিরুদ্ধ ভ্রাম্যমাণ আদালতে জরিমানা হবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published.