বোরহানউদ্দিনে কোন কৃষি জমি যেন অনাবাদি না থাকে : আলী আজম মুকুল

গোলাম মাহমুদ শাওন:
মরণঘাতি করোনা পরিস্থিতিতে কৃষিখাতকে উজ্জীবিত করার জন্য ভোলার বোরহানউদ্দিন উপজেলার ১৭০০জন ক্ষুদ্র ও প্রান্তিক কৃষকের মাঝে বিনামূল্যে রাসায়নিক সার ও আউস ধান বীজ বিতরণ করা হয়েছে। খরিফ-১ প্রকল্পের আওতায় ভোলা-২ আসনের সংসদ সদস্য আলহাজ্ব আলী আজম মুকুল বুধবার সকালে উপজেলার মুক্ত মঞ্চে সামাজিক ও শারীরিক দূরত্ব বজায় রেখে বিতরণ কার্যক্রম উদ্বোধন করেন।
এ সময় এমপি বলেন, বর্তমান সরকার কৃষি বান্ধব সরকার। বিশ্ব মানবতার মা জননেত্রী শেখ হাসিনার আমলে কোন কৃষককে সারের জন্য গুলি খেয়ে মরতে হয়নি। অথচ সারের জন্য আমরা ১৭ কৃষককে গুলি খেয়ে মরতে দেখেছি। আজ বাংলাদেশ খাদ্যে স্বয়ংস্পূর্ণ। তিনি বলেন, করোনা পরিস্থিতিতে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী যে ৭২ হাজার ৫ শত কোটি টাকার প্যাকেজ ঘোষণা করেন। যার মধ্যে কৃষিখাতে ৫ হাজার কোটি টাকা কৃষি প্রণোদনায় বরাদ্ধ রেখেছেন। এছাড়াও সাড়ে ৯ হাজার কোটি টাকা সারের উপর ভর্তূকীর বরাদ্ধ রাখা হয়েছে। যা আগামী জুলাই মাস থেকে কার্যকর হবে। করোনা পরিস্থিতির পরে বিশ্বের অনেক দেশে খাদ্য ঘাটতি দেখা দিবে। বাংলাদেশ যাতে ঐ সমস্যায় না পড়ে বরং খাদ্য উদ্বৃত্ত দেশ হিসাবে অন্য দেশের প্রয়োজনে খাদ্য রপ্তানি করতে পারে সেজন্য কৃষি বিভাগকে নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে।
উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা মোঃ ওমর ফারুক জানান, খরিপ-১ প্রকল্পে প্রাথমিক বরাদ্ধ ছিল ১১০০।করোনা পরিস্থিতির কারনে যা ১৭০০ হয়।উপজেলার ৯ ইউনিয়ন ও পৌরসভার উল্লেখিত প্রান্তিক ও ক্ষুদ্র কৃষকদের জনপ্রতি ডেপ সার-২০কেজি, এমওপি ১০কেজি এবং আউশ ধান বীজ ৫ কেজি করে বিতরণ করা হয়েছে।
অনুষ্ঠানে আরও ছিলেন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোঃ বশির গাজী,ভোলা কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের উপ-পরিচালক হরলাল মধু।

Leave a Reply

Your email address will not be published.