কাল ভোলায় আসছেন বাংলাদেশী বিশ্ব পর্যটক ও লেখক এলিজা

প্রেস বিজ্ঞপ্তি ॥
বাংলাদেশের প্রতœতাত্ত্বিক নিদর্শনগুলো সংরক্ষণ ও পর্যটনের গুরুত্বকে তুলে ধরার জন্য ৩৮তম জেলা হিসেবে আগামীকাল (২২ মার্চ) দ্বীপজেলা ভোলায় আসছেন বাংলাদেশী বিশ্ব পর্যটক ও লেখক এলিজা বিনতে এলাহী। এ সফরে তিনি বরিশাল বিভাগের ৬টি জেলা ভ্রমনের উদ্দেশ্যে বের হবেন। বরিশাল জেলার বিভিন্ন প্রতœতাত্ত্বিক নিদর্শনগুলো সরেজমিনের ঘুরে দেখার পাশাপাশি লিখিত তথ্য, লোককথা, স্থিরচিত্র ও ভিডিওগ্রাফির মাধ্যমে তথ্য সংগ্রহ করবেন তিনি।


ব্যক্তিগত উদ্যোগে “কোয়েস্ট” (QUEST) নামক প্রজেক্ট এর আওতায় ৬৪ জেলার প্রতœতাত্ত্বিক স্থাপনাগুলোর বর্তমান অবস্থা সরেজমিনে ভ্রমন করে তথ্য সংগ্রহের পাশাপাশি স্থানীয়ভাবে হেরিটেজ পর্যটনের ব্যাপারে উদ্বুদ্ধ করছেন স্থানীয়দের। বাংলাদেশের ‘ইউনিভার্সিটি অফ সাউথ এশিয়া’র সহকারী অধ্যাপক এলিজা এ পর্যন্ত বাংলাদেশের ঢাকা, ময়মনসিংহ, রংপুর সিলেট ও রাজশাহী বিভাগের ৩৭টি জেলার প্রতœতাত্ত্বিক তথ্য সংগ্রহের কাজ সমাপ্ত করেছেন। ৬য় তম বিভাগ বরিশাল প্রথম জেলা ভোলা দিয়ে শুরু হয়ে ৩১শে মার্চ পটুয়াখালী জেলা ভ্রমনের মধ্যদিয়ে শেষ হবে বরিশাল বিভাগের হেরিটেজ ট্যুর। শিক্ষা ছুটিতে নেদারল্যান্ডস এর ‘দ্য হেগ ইউনিভার্সিটি অফ এপ্লায়েড সায়েন্স’ এ অধ্যয়নরত এই পর্যটকের গবেষণার বিষয়ও ‘বাংলাদেশের পর্যটন শিল্প বিকাশে হেরিটেজ ট্যুরিজমের গুরুত্ব’। বাংলাদেশ ছাড়াও তিনি ইতোপূর্বে এশিয়া ও ইউরোপের ৪৬ দেশের প্রতœতাত্ত্বিক নিদর্শন পরিভ্রমণ করেছেন। এশিয়ার ভ্রমণের অভিজ্ঞতা নিয়ে রয়েছে তাঁর ২টি প্রকাশনা, ‘এলিজা’স ট্রাভেল ডায়েরী’ ও ‘এলিজা’স ট্রাভেল ডায়েরী-২’। এছাড়াও ভ্রমণ অভিজ্ঞতা নিয়ে তিনি ‘ঢাকা ট্রিবিউন’ ও ‘এনটিভি অনলাইন’সহ অন্যান্য পত্রপত্রিকায় নিয়মিত লিখছেন। এলিজা মনে করেন বিশ্ব ভ্রমণের এই অভিজ্ঞতা বাংলাদেশে ‘হেরিটেজ ট্যুরিজম’ প্রসারের ক্ষেত্রে কাজে লাগবে।
বাংলাদেশের প্রতœতাত্ত্বিক নিদর্শনগুলোর ঐতিহাসিক গুরুত্ব রয়েছে যা সঠিকভাবে সংরক্ষণ করলে শিক্ষা-গবেষণার পাশাপাশি দেশে পর্যটনশিল্প বিকাশে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখবে বলে তিনি মনে করেন।
৬৪টি জেলায় বৃহৎ পরিসরের কাজটি সম্পাদনের ব্যাপারে তিনি প্রশাসন, সাংবাদিক, সাংস্কৃতিক কর্মীসহ সর্বস্তরের মানুষের সার্বিক সহযোগিতা কামনা করেন।
যোগাযোগ ঃ ফোনঃ ০১৮১৯৪২৯৭৯৭, ইমেইলঃ eliza_elahi@yahoo.com, ফেসবুক আইডিঃ  Eliza Binte Elahi, https://www.facebook.com/eliza.b.elahi

আপনার মন্তব্য জানান