যে কারনে লালমোহন উপজেলাধীন গজারিয়া ‘চর উমেদ’ ইউপি নির্বাচন হচ্ছে তৈরী হচ্ছে দীর্ঘসূত্রিতা

লালমোহন প্রতিনিধি, ভোলা বার্তা ।।
ভোলার লালমোহনের ৭ নং পশ্চিম চর উমেদ ইউনিয়ন বিভক্তির কারনে নির্বাচন হচ্ছে না। অনুসন্ধানে জানা  গেছে বিচ্ছিন্ন কয়েকটি মহল বিভিন্ন সময় নির্বাচন না হওয়ার জন্য বর্তমান চেয়ারম্যনকে দায়ী করে আসছে। সূত্রে জানা যায় , লালমোহন তজুমুদ্দিন সংসদ সদস্য মোঃ নুরনবী চৌধুরী ( শাওন ) ৭নং চরউমেদ ইউনিয়ন পরিষদকে বিভক্ত করার জন্য স্থানীয় মন্ত্রনালয় কর্তৃক গত ৬-৮-১৫ ইং জেলা প্রশাসক ভোলা বরাবর যার স্বারক নং স্থাবসি / ইস্প/ ইউ পি/ -৫৩ /০৮/ ৮০৮ প্রস্তাব প্রেরন করেন। যার প্রেক্ষিতে জেলা প্রশাসক ভোলা গত ৩১-০৮-১৫ ইং উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা লালমোহনকে স্থানীয় সরকার ইউনিয়ন পরিষদ আইন অনুসারে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহন জন্য স্বারক নং
(৪৬.১০.০৯০০.০০৪.০২.০০৬.১৫.-৬৪৪) প্রেরন করেন। উক্ত স্মারকের আলোকে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা বিগত ২০/১০/২০১৫ ইং তারিখে যার স্মারক নং ০৫.১০.০০৯.৫৪.৪৬.০০২ .১৫-৬৩২ এর আলোকে ৭ নং পশ্চিম চর উমেদ ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যানকে উক্ত ইউনিয়নটি বিভক্ত করার প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহনের নির্দেশ প্রদান করেন। ইউপি চেয়ারম্যান অধ্যক্ষ আবু ইউছুফ ৭ নং পশ্চিম চর উমেদ ইউনিয়নকে ২টি ইউনিয়ন ও নাম করনসহ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার বরাবর প্রেরন করেন । অথচ একটি মহল নির্বাচন না হওয়ার জন্য বর্তমান চেয়ারম্যনকে দায়ী করেন।
এদিকে জেলা নির্বাচন কমিশনের একটি সূত্রে জানা গেছে, লালমোহন উপজেলার ৫টি ইউনিয়ন ( বদরপুর, ধলিগর নগর, লর্ডহার্ডিন্স , কালমা ও ৭ নং পশ্চিম চর উমেদ) কে বিভক্ত করে আরো কয়েকটি ইউনিয়ন গঠিত হবে। তবে বিভক্ত কার্যক্রম শেষ হলে যথাসময় নির্বাচন হবে বলে জানিয়েছেন নির্বাচন অফিস।

Leave a Reply

Your email address will not be published.