ভোলার লালমোহন উপজেলাধীন গজারিয়া ভূমি দস্যু, মাদক সম্রাট, কালা আলমগীরের অপরাধর সম্রাজ্য প্রশাসনের নজর নেই

লালমোহন প্রতিনিধি/গজারিয়া, ভোলা বার্তা ।।

ভোলা লালমোহন উপজেলা ৭ নং চর উমেদ ইউনিয়নের তিন নং ওয়ার্ডের মেম্বার আলমগীর হোসেন ওরফে কালা আলমগীর স্থানীয়ভাবে অপরাধ সম্রাজ্য গড়ে তুলেছেন। খোঁজ নিয়ে জানা গেছে স্থানীয় মেম্বার কালা আলমগীর ২০১৪ সালে আওয়ামী লীগে যোগ দিয়ে দলের প্রভাব খাটিয়ে জনে মনে আতঙ্ক সৃষ্টি করে ভূমি দখল, মাদক ব্যবসা, ও বিচারের নামে নারী কেলেঙ্কারি সহ একাধিক অভিযোগ রয়েছে,

ছবিঃ মাদক সেবনরত কালা আলমগীর

স্থানীয়দের সঙ্গে আলাপ করে জানা গেছে আলমগীর মেম্বার ওরফে কালা আলমগীর ২০১৪ সালে আওয়ামীলীগের যোগ দিয়ে গজারিয়া বাজারের ঐতিহ্যবাহী মাতাব্বর পরিবারের বাসস্ট্যান্ডের ঘর গুলো দখল করে। অতঃপর চরে দেশে নাল জমি বসতবাড়ি পুকুর বাগান দখল করে গজারিয়ায় রাম রাজত্ব কায়েম করে। তাতে কেউ পৈত্রিক ঘরছাড়া জমি ছাড়া বসত ভিটে ছাড়া হয়ে পথে বসতে শুরু ।

এই কালা আলমগীর মেম্বার আওয়ামী লীগের প্রভাব খাটিয়ে এলাকায় বিচার সালিশের নামে ঘুষ চাঁদাবাজি সহ বিভিন্ন অন্যায় এর রাম রাজত্ব কায়েম করে যাচ্ছে, এমন কি বয়স্ক ভাতার  কার্ডের নামে বেনামে করে। নিজ লোক দিয়ে উত্তোলন করে তা আত্মসাৎ করছে এছাড়া স্থানীয় চেয়ারম্যান তার আত্মীয় হয় টিআর কাবিখাসহ বহু অনিয়মের সাথে জড়িত। খোঁজ নিয়ে জানা গেছে  এই ভূমিদস্যু কালা আলমগীর ও তার বাহিনীর অন্যতম সদস্য মিরাজ ওরফে ছেচরা চোর মিরাজ কে দিয়ে এলাকায় গাঁজা ইয়াবা ফেনসিডিল সহ এলাকায় মাদকের রমরমা ব্যবসা চালিয়ে যাচ্ছে যা  লালমোহন-তজুমদ্দিন এর বিভিন্ন স্কুল কলেজ মাদ্রাসা সহ স্থানীয় শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে কালা আলমগীর তার বাহিনী দিয়ে মাদক সাম্রাজ্য গড়ে তুলে কোমলমতি যুবকদের বিপথগামী করছে। দীর্ঘদিন যাবৎ পত্রিকায় প্রকাশিত হওয়ার পর ও কালা আলমগীরের কালা বাহিনী দমনে রহস্যজনক ভাবে স্থানীয় প্রশাসন নিরব ভূমিকা পালন করছে এবং এই কালা আলমগীরের এসব অপকর্মের কারণে গজারিয়া ও উপজেলা আওয়ামী আওয়ামীলীগের সুনাম ক্ষুন্ন হচ্ছে বলে স্থানীয় আওয়ামী লীগের নেতৃবৃন্দ অভিযোগ করেছেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published.