ইকরা বাংলাদেশ স্কুল এন্ড মাদরাসায় হাফেজ ছাত্রদের পাগড়ী প্রদান ও ছবক অনুষ্ঠিত

ভোলার শহরের প্রাণ কেন্দ্রে আধুনিক ও ধর্মীয় শিক্ষার সমন্বয় ইকরা বাংলাদেশ স্কুল এন্ড মাদরাসা ভোলা শাখার হেফজ বিভাগ থেকে হাফেজ হওয়া ছাত্রদের পাগড়ী প্রদান ও নতুন হিফজ শিক্ষার্থীদের ছবক অনুষ্ঠিত হয়েছে। সোমবার (১৫ এপ্রিল) এশা বাদ ভোলা শহরের উকিলপাড়াস্থ এ্যাড: মমতাজ বেগমের বাসায় ইকরা বাংলাদেশ স্কুল ও মাদরাসা ভোলা শাখার ক্যাম্পাসে মাদরাসার পরিচালক আলহাজ্ব মাওঃ ইসরাফিল আলমের সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন ভোলা সদর উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান আলহাজ্ব মোহাম্মদ ইউনুছ। হেফজ সমাপনী শিক্ষর্থীদের মাথায় পাগড়ী প্রদান করেন দৌলতখান চরশুভি আজিজিয়া মাদরাসার নাজেমে তালিমাত প্রবীন আলেম মাওঃ আবদুল মালেক। এসময় আরো বক্তব্য রাখেন রতনপুর মাদ্রাসার মুহতামিম মাওঃ মিজানুর রহমান, ইক্বরা মাদরাসা ভোলার হেফজ বিভাগের প্রধান হাফেজ মাওঃ ইয়াছিন, ভোলা আলিয়া ও গোরস্থান মাদরাসার মোহাদ্দেস মাওঃ ফায়জুল্লাহ, মাওঃ আতাউর রহমান মোমতাজী প্রমুখ।
এ সময় আলীনগর আজিজিয়া মাদরাসার মুহতামিম মাওঃ তৈয়বুর রহমান, সরকারী ফজিলাতুন নেসা মহিলা কলেজের সহকারী অধ্যাপক হুমায়ুন কবির, ইব্রাহিম শামিম, নাছির মাঝি মাদ্রাসার পরিচালনা কমিটি সদস্য হাফেজ ফারুক, চ্যানেল-২৪ এর জেলা প্রতিনিধি ও রেড ক্রিসেন্ট সোসাইটির যুবপ্রধান আদিল হোসেন তপু, ভোলানিউজটুয়েন্টিফোর ডটনেট এর নির্বাহী সম্পাদক রাকিব উদ্দিন অমি, গ্রামীন সমাজ কল্যাণ পাঠাগারের সম্পাদক ও দৈনিক আজকের ভোলার সহ-সম্পাদক এম শাহরিয়ার জিলন, আজকের ভোলার স্টাফ রিপোর্টার এম মইনুল এহসান সহ আলেম ওলামা, সাংবাদিক, অভিভাবক সহ সুশীল সমাজের প্রতিনিধিবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।
এবছর ইকরা বাংলাদেশ স্কুল ও মাদরাসার থেকে সদর উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান আলহাজ্ব মোহাম্মদ ইউনুছ এর ছেলে হাফেজ আনাছ বিন ইউনুছ, হাফেজ জুবায়র, হাফেজ মোঃ ইছহাক, হাফেজ জুনায়েদ মাহমুদ, হাফেজ মোঃ মাহমুদুর রহমান তামিম, হাফেজ, মাহদী হাসান (মাহি), হাফেজ আসফিকুর রহমান (ওহি), হাফেজ আবদুর রহমান, হাফেজ মোঃ জাবের মোট ৯ জন শিক্ষর্থী হেফজ সমাপ্ত করেন।
আলোচনায় বক্তারা বলেন, কোরআন শরীফ আল্লাহর কালাম। আল্লাহপাক যাকে তৌফিক দান করেন, সেই কোরআনে হাফেজ হন। হাদিস শরীফে আছে কেয়ামতের দিন হাফেজে কোরআনরা ১০জনকে সাফায়াত করতে পারবে। আমাদের সমাজে একটা প্রচলিত রেওয়াজ আছে যে ধর্মীয় শিক্ষাকে ছোট করে দেখা হয়। কিন্তু আসলে ধর্মীয় শিক্ষা ব্যতিত কেউ আদর্শবান মানুষ হতে পারে না। তাই প্রত্যেকের উচিৎ তার সন্তানকে প্রথমে ধর্মীয় শিক্ষায় শিক্ষিত করা। ইকরা বাংলাদেশ স্কুল ও মাদ্রাসা ধর্মীয় শিক্ষা ও আধুনিক শিক্ষায় সমন্বয় গঠিত। এখান থেকে একজন শিক্ষার্থীকে ধর্মীয় শিক্ষার পাশাপাশি আধুনিক শিক্ষায় শিক্ষিত করা সম্ভব। এরকম যদি সকল আধুনিক শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলো আধুনিক শিক্ষার পাশাপাশি ধর্মীয় শিক্ষা ব্যবস্থা চালু করে তাহলে আমাদের দেশে আদর্শ প্রজন্ম গড়ে উঠবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published.