তজুমদ্দিনে শেষ মুহূর্তের প্রচার -প্রচারনায় ব্যস্ত প্রার্থীরা

আগামী রবিবার চতুর্থ ধাপে ভোলা জেলার ৬টি উপজেলায় নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। এই নির্বাচনে ইতিমধ্যে ৪টি উপজেলায় চেয়ারম্যান পদে বিনা-প্রতিদ্বন্দ্বিতায় জয়ী হয়ে গেছে। এখন চেয়ারম্যান পদে নির্বাচন হবে তজুমদ্দিন ও লালমোহন উপজেলায়। নির্বাচনকে সামনে রেখে ইতিমধ্যে শেষ মুহূর্তের প্রচার প্রচারণায় ব্যস্ত সময় পার করেছন তজুমদ্দিন উপজেলার প্রার্থীরা। নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদে ২জন,ভাইস চেয়ারম্যান পদে ৬ জন ও সংরক্ষিত মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান পদে তিনজন প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন।
প্রার্থীরা নিজস্ব প্রতিক নিয়ে উপজেলার ৫টি ইউনিয়নের বিভিন্ন এলাকা,চর চরাঞ্চল থেকে শুরু করে বিভিন্ন বাজার থেকে শুরু সবজায়গায় শেষ মুহূর্তের ব্যাপক প্রচারণা চালিয়ে নিজের পক্ষে ভোট যাচ্ছেন। আর এই প্রচারনায় কোনো প্রার্থীই পিছিয়ে নেই। সকাল থেকে শুরু করে রাত পর্যন্ত  ছুটছেন ভোটারদের দ্বারে দ্বারে।
চেয়ারম্যান পদে আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী বর্তমান উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান ফজলুল হক দেওয়ান নৌকা প্রতীক নিয়ে চর জহির উদ্দিন সহ বিভিন্ন এলাকায় প্রচারনা চালিয়ে  শেষ মুহূর্তে ভোটারদের কাছে ভোট চাইছেন। এসময় তিনি বলেন,জন গনের ভোটে তিনি আবারও নির্বাচনে জয়ী হয়ে জননেত্রী শেখ হাসিনাকে উপহার দিবেন।
এদিকে নৌকার প্রার্থীকে বিজয়ী করতে উপজেলা আওয়ামী লীগের প্রচার সম্পাদক নুরনবী নসু মিয়ার নেতৃত্বে খাসের হাট বাজারের বিভিন্ন পয়েন্টে নৌকা পক্ষে গনসংযোগ করা হয়। এসময়  নৌকা মার্কায় ভোট প্রদানের মাধ্যমে বিজয়ী করে দলের চেয়ারম্যান ফজলুল হক দেওয়ানকে জয়ী করে স্থানীয় সংসদ নুরনবী চৌধুরী শাওন (এমপি)’র উন্নয়নের ধারা অব্যাহত রাখতে এবং তাঁর হাতকে শক্তিশালী করতে সকলকে ঐক্যবদ্ধভাবে কাজ করার আহ্বান জানান।
অপরদিকে সতন্ত্রপ্রার্থী মোশারেফ হোসেন দুলাল আনারস মার্কার প্রতীক নিয়ে সম্ভুপুর ইউনিয়নের খাসেরহাট বাজার সহ বিভিন্ন ইউনিয়নে প্রচারনা চালায়। এসময় তিনি বলেন, উপজেলা নির্বাচন যদি সুষ্ঠ ও শান্তিপূর্ন হয় মানুষ যদি ভোট কেন্দ্রে গিয়ে ভোট দিতে পারে তাহলে জনগনের রায় নিয়ে শতকারা আশি ভাগ ভোট পেয়ে  ২য় বারের মতো উপজেলা চেয়ারম্যান পদে নির্বাচিত হবেন। এসময় তিনি  নির্বাচন কমিশন এর কাছে আহবান জানিয়ে বলেন, জনগনকে ভোট দেওয়ার পরিবেশ করে দিতে হবে। মানুষ এখন ভোট দেওয়ার জন্য অধির আগ্রহে অপেক্ষা করছে। মানুষের ভোটের অধিকার করার সুযোগ করে দিতে প্রশাসনকে ব্যবস্থা নেওয়ার আহবান জানান।
এছাড়াও পুরুষ ও মহিলা ভাইস চেয়ারম্যানরা প্রার্থীরা তাদের কর্মী সমর্থকদের নিয়ে শেষ মুহূর্তের প্রচারনা চালিয়ে যাচ্ছেন।
তজুমদ্দিন থানার ওসি মো: ফারুক আহমেদ বলেন, তজুমদ্দিন উপজেলা নির্বাচন অধাধ ও সুষ্ঠ নির্বাচন করার লক্ষ্যে আমরা বদ্ধ পরিকর। ইতিমধ্যে নির্বাচনকে সুষ্ঠ শান্তিপূর্ন ও গ্রহণযোগ্য নির্বাচন করার লক্ষ্যে  পুলিশ এর পাশাপাশি ৬ স্তরের নিরাপত্তা ব্যবস্থা গ্রহন করা হয়েছে। নির্বাচনকে ঘিরে বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ন পয়েন্টে চেকপোস্ট বসানো হয়েছে। যাতে কোন বহিরাগত এই উপজেলায় ঠুকতে না পারে। আশা করি নির্বানকে শান্তিপূর্ন ভাবে শেষ করতে পারবো।
৫টি ইউনিয়ন নিয়ে গঠিত এই উপজেলায় মোট ভোটার হচ্ছে ৮৫ হাজার ৮শত ৮৪ জন। এর মধ্যে পুরুষ ৪৩ হাজার ৯৩৬ জন ও মহিলা ভোটার-৪১ হাজার ৯৪৮ জন। মোট ভোট কেন্দ্র হচ্ছে-৪৪টি, বুথ ২৬৪টি।

Leave a Reply

Your email address will not be published.